১৩ আগস্ট ২০১৭, রবিবার

লাল কার্ডের মাশুল গুনতে হলো চেলসিকে

Loading...

প্রথমবার্তা ডেস্ক, রিপোর্টঃ       গ্যারি কাহিল ও চেস ফ্যাব্রেগাসের লাল কার্ডের মাশুল গুনতে হয়েছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন চেলসিকে। প্রিমিয়ার লিগের প্রথম ম্যাচেই শনিবার বার্নালির কাছে ৩-২ গোলে পরাজিত হয়ে হোঁচট খেয়েছে ব্লুজরা। প্রথমার্ধেই তিন গোলে পিছিয়ে থাকা চেলসি দ্বিতীয়ার্ধে আলভারো মোরাতা ও ডেভিড লুইজের গোলে ম্যাচে ফিরে আসলেও হার এড়াতে পারেনি। বার্নলির পক্ষে স্যাম ভোকসের গোল জয় নিশ্চিত করে।

 

 

 

 

 

ম্যাচের ১৪ মিনিটে নতুন অধিনায়ক কাহিলের লাল কার্ডেই মূলত পিছিয়ে পড়ে চেলসি। এন্টোনিও কন্টের দলের পক্ষে এই ক্ষতি পূরণ করা পুরো ম্যাচে আর সম্ভব হয়নি। গত পাঁচ মৌসুমে এটা কাহিলের প্রথম লাল কার্ড। স্টিভেন ডেফোরকে আটকাতে গিয়ে লাল কার্ডের ফাঁদে পড়েন কাহিল। বেলজিয়ান এই ফরোয়ার্ডকে অনেকটা অনিচ্ছাকৃতভাবেই বুক দিয়ে ট্যাকেল করতে গিয়ে কাহিল নিজেকে সামলাতে পারেননি। কিন্তু রেফারী ক্রেইগ পাওসন তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদান করে মাঠ ত্যাগে বাধ্য করেন।

 

 

 

 

 

চেলসি খেলোয়াড়রা বাকি সময়টা একজন কম নিয়ে খেলে নিজেদের গুছিয়ে ওঠার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছে।

 

 

 

 

 

৮১ মিনিটে ফ্যাব্রেগাস দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ত্যাগ করলে চেলসির সুযোগ কার্যত শেষ হয়ে যায়। পাওসনের একটি ফ্রি-কিকের সিদ্ধান্তে ফ্যাব্রেগাস বিরোধীতা করতে গিয়ে লাল কার্ডের শিকার হন। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে মৌসুমের শুরুতেই এই পরাজয় দারুণ হতাশ করেছে চেলসি সমর্থকদের।

Loading...

 

 

 

 

 

কাহিলের অনুপস্থিতিতে চেলসির রক্ষণভাগ যেন পুরোটাই এলোমেলো হয়ে যায়। লুইজ কিছুটা সামলে ওঠার চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত তা কাজে আসেনি। আর এই সুযোগটাই নিয়েছে সফরকারীরা। ২৪ মিনিটে ম্যাথু লোটনের ক্রস থেকে স্ট্রাইকার ভোকসের ভলি চেলসি গোলরক্ষক থিবাট কোরটোয়িসকে পরাস্ত করে। বিরতির ছয় মিনিট আগে লেফট-ব্যাক স্টিফেন ওয়ার্ড ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। জ্যাক কর্কের সাথে বল আদান প্রদান করে বামপায়ের জোড়ালো শটে ওয়ার্ড গোল নিশ্চিত করেন।

 

 

 

 

 

৪০ মিনিটে চেলসির পক্ষে প্রথম একটি শটের সুযোগ সৃষ্টি করেন লুইজ। কিন্তু গোলপোস্টের অনেক ওপর দিয়ে সেই শট বাইরে চলে যায়। ৪৩ মিনিটে ফ্রি-কিক থেকে ডেফোরের শট ভোকেস গোলে পরিণত করলে বিরতির আগে বার্নালি বড় জয়ে আভাস দেয়। এই গোলে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজ পুরোটাই হতবাক হয়ে যায়। তারা রেফারী পাওসনের ওপর নিজেদের ক্ষোভ ঝাড়তে থাকে। অন্যদিকে বার্নালি সমর্থকরা উচ্চস্বরে গান গেয়ে ওঠে, ‘আমরা লিগের শীর্ষে অবস্থান করছি। ‘

 

 

 

 

 

 

প্রথমার্ধের স্টপেজ টাইমে এন’গোলো কান্টের শট ডিফ্লেকটেড হয়ে বাইরে চলে যায়। মার্কোস আলোনসোর শট কোনরকমে রক্ষা করেন বার্নালি গোলরক্ষক টম হিটন। প্রথমার্ধের পুরোটাই অবশ্য একমাত্র উইলিয়ানই নিজের নামের প্রতি সুবিচার করেছেন। এই ব্রাজিলিয়ানের ৬৯ মিনিটের ক্রস থেকে মাত্র ৯ মিনিট আগে মাঠে নামা মোরাতা বার্নালি রক্ষনভাগকে ফাঁকি দিয়ে চেলসির পক্ষে ডেডলক ভাঙ্গেন।

 

 

 

 

 

 

৫ মিনিট পরে মোরাতা দ্বিতীয় গোলের সুযোগ নষ্ট করেন। অবশ্য গোলটিতে অফ-সাইডের সিদ্ধান্ত ছিল। ম্যাচ শেষে নয় মিনিট আগে কর্ককে ফাউলের অপরাধে ফ্যাব্রেগাস দ্বিতীয় হলুদ কার্ড পেলে চেলসির সব আশা শেষ হয়ে যায়। মোরাতার পাস থেকে ৮৮ মিনিটে লুইজের গোল কেবল ব্যবধানই কমিয়েছে।

Loading...

You must be logged in to post a comment Login

Loading…


মতামত

প্রতিদিনের সর্বশেষ সংবাদ পেতে

আপনার ই-মেইল দিন

Delivered by FeedBurner

[X]