২১ এপ্রিল ২০১৭, শুক্রবার

কিয়ামত সম্পর্কে কেবল আল্লাহ ভালো জানেন

প্রথমবার্তা ডেস্ক, রিপোর্টঃ             “তারা বলে, যদি তোমরা সত্যবাদী হও, তবে বলো (কেয়ামত হওয়ার) এই প্রতিশ্রুতি কখন বাস্তবায়িত হবে?” (সুরা ইউনুস, আয়াত : ৪৮)

 

 

 

 

তাফসির: আগের আয়াতে বলা হয়েছিল, প্রতিটি জাতির জন্য রাসুল বা আল্লাহর প্রতিনিধি পাঠানো হয়েছে। যারা ইমান এনেছে তারা সফলকাম হয়েছে।

যারা ইমান আনেনি তাদের ওপর আজাব এসেছে। পরকালেও সবাইকে নিজ নিজ রাসুলের সঙ্গে আল্লাহর দরবারে হাজির করা হবে।

 

 

 

 

আলোচ্য আয়াতে পরকাল বিষয়ে অবিশ্বাসীদের কৌতূহল ও তাদের অহেতুক প্রশ্নের বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই আয়াতের অনুরূপ একাধিক আয়াত পবিত্র কোরআনে রয়েছে। এখানে বলা হয়েছে, আজাবের কথা বললেই অবিশ্বাসীরা জিজ্ঞাসা করে, কেয়ামত কবে হবে?

 

 

 

 

কিন্তু কেয়ামতের সঠিক সময় আল্লাহ ছাড়া কেউ জানে না। মহানবী (সা.)-কেও কেয়ামতের সময় সম্পর্কে জানানো হয়নি। আল্লাহ বলেন, “কেয়ামতের জ্ঞান কেবল আল্লাহর কাছে আছে।” (সুরা লুকমান, আয়াত : ৩৪)

 

 

 

 

কেয়ামতের কিছু আলামত

Loading...

কেয়ামত কবে হবে এ বিষয়ে আল্লাহ ছাড়া কেউ কিছু জানে না। তবে হাদিস শরিফে কেয়ামতের বিভিন্ন আলামত বর্ণিত হয়েছে। এক হাদিসে এসেছে, ‘ততক্ষণ পর্যন্ত কেয়ামত হবে না, যতক্ষণ না ধর্মীয় জ্ঞান উঠে যাবে, ভূমিকম্প বেড়ে যাবে, সময়ের

বরকত উঠে যাবে, ফিতনা-ফ্যাসাদ চরম আকার ধারণ করবে, আর অন্যায় হত্যাকা- বেড়ে যাবে এবং প্রয়োজন অতিরিক্ত সম্পদ বেড়ে যাবে।’ (বুখারি, হাদিস : ১০৩৬)

 

 

 

 

 

কেয়ামতের আগে প্রচুর হত্যাকা- ঘটবে। মহানবী (সা.) বলেছেন, ওই সত্তার শপথ, যার হাতে আমার প্রাণ!

ততক্ষণ পর্যন্ত পৃথিবী ধ্বংস হবে না, যতক্ষণ না এমন পরিস্থিতি হবে যে হত্যাকারী নিজেও জানবে না, কেন সে লোকটিকে হত্যা করেছে। আর নিহত ব্যক্তিও জানবে না, তাকে কেন হত্যা করা হলো। (মুসলিম শরিফ, হাদিস : ২৯০৮)

 

 

 

 

অন্য হাদিসে এসেছে, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, যখন আমানতদারি উঠে যাবে, তখন তোমরা কেয়ামত সংঘটিত হওয়ার অপেক্ষা কোরো। সাহাবায়ে কেরাম আরজ করলেন, আমানতদারি কিভাবে উঠে যাবে?

 

রাসুলুল্লাহ (সা.) বললেন, আমানতদারি উঠে যাওয়ার একটি উদাহরণ হচ্ছে, যে ব্যক্তি যে দায়িত্ব পালনের যোগ্য নয়, তাকে সে দায়িত্ব দেওয়া হবে।’ (বুখারি, হাদিস : ৬৪৯৬)

 

 

 

 

কেয়ামতের আগে সামাজিক অবক্ষয়ের চিত্র হাদিসে এভাবে এসেছে, সন্তানদের মধ্যে মা-বাবার অবাধ্যতা ব্যাপকভাবে দেখা দেবে।

সন্তান তার মায়ের সঙ্গে এমন অবমাননাকর ও অসম্মানজনক আচরণ করবে, যা একজন মনিব তার দাসীর সঙ্গে করে থাকে। (বুখারি, হাদিস : ৫০)

Loading...



মতামত

প্রতিদিনের সর্বশেষ সংবাদ পেতে

আপনার ই-মেইল দিন

Delivered by FeedBurner

[X]